ভাবসম্প্রসারণ : ধ্বনিটিরে প্রতিধ্বনি সদা ব্যঙ্গ করে, ধ্বনির কাছে ঋণী সে যে পাছে ধরা পড়ে

ধ্বনিটিরে প্রতিধ্বনি সদা ব্যঙ্গ করে, ধ্বনির কাছে ঋণী সে যে পাছে ধরা পড়ে

ধ্বনিটিরে প্রতিধ্বনি সদা ব্যঙ্গ করে, ধ্বনির কাছে ঋণী সে যে পাছে ধরা পড়ে ভাব-সম্প্রসারণ / ধ্বনিই প্রতিধ্বনির জন্মদাতা এবং ধ্বনির কাছে প্রতিধ্বনি তাই মহাক্ষী

ধ্বনিটিরে প্রতিধ্বনি সদা ব্যঙ্গ করে, ধ্বনির কাছে ঋণী সে যে পাছে ধরা পড়ে

মূলভাব:

ধ্বনিই প্রতিধ্বনির জন্মদাতা এবং ধ্বনির কাছে প্রতিধ্বনি তাই মহাক্ষী। অনীতা বা ঋণ ধীকার না করে এবং ধ্বনিকে ব্যঙ্গ করার প্রচেষ্টা চালায়, যাতে তার ঋণ অপ্রকাশ থাকে

সম্প্রসারিত ভাব:

প্রতিধ্বনি নিজেকে ঋণমুক্ত করে জনসম্মুখে প্রকাশ করতে সর্বনা ধ্বনিকে বিদ্রুপ করতে বস্ত থাকে। উৎসের দিকেই ফিরে এসে বাজতে থাকে, তখন সেটা হয় প্রতিধ্বনি। তাই প্রতিজ্ঞানির কোনো আলাদা অস্তিত্ব নেই। আছে বলেই ধ্বনি বেঁচে আছে। আর এ অকৃতজ্ঞ প্রতিধ্বনির ন্যায় সমাজে অনেক মানুষের আনাগোনা দেখতে পাই যার অপরের অনুগ্রহে সিক্ত হয়ে চরম দুরবস্থায় কোনো রকম স্থিতিশীল হওয়ার সুযোগ পায়। পরবর্তীতে ভাগ্যক্রমে অনুগ্রহকারী ই স হ হয়ে তার অনুগ্রহকারীর প্রদেয় অনুগ্রহ স্বীকার তো করেই না বরং তাকে হেয় প্রতিপন্ন করতে সদা সচেষ্ট থাকে। বি আল্লাহর যাবতীয় নেয়ামত প্রতিনিয়ত ভোগ করে চলেছে এবং একইভাবে আল্লাহকে অস্বীকার করছে। এমনকি তার করার চেষ্টায় সর্বদা তাদের সময়, শ্রম, মেধা নিয়োজিত এবং তার নেয়ামতকে প্রাকৃতিক বলে মানুষের নিকট উপস্থাপন করছে। আল্লাহর ইচ্ছা ব্যতীত তাদের একটা নিঃশ্বাস পর্যন্ত চলতে পারে না। এরা দুনিয়ার ঘৃণ্যতম, আলাহর সৃষ্টি। আর তাই হলো যা সত্য তা স্বীকার করে নেয়ার মধ্যে অগৌরবের কিছু নেই বরং অস্বীকার করার মধ্যে রয়েছে সংকীর্ণ মনের ঋণ স্বীকার করে নেয়ার মধ্যে অগৌরবের কিছু নেই বরং ঋণ বা উপকারীর উপকারীকার করে নিয়ে তার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রদর্শন করা উচিত।

বিঃদ্রঃ বাংলাদেশর সকল শিক্ষা বিষয়ের খবর তথ্য জানতে চোখ রাখুন কৌণিক বার্তা ফেসবুক পেজেঃ-


ভাবসস্প্রসারণের সম্পূর্ণ তালিকা
Next Post Previous Post
মন্তব্যগুলো দেখান
মন্তব্যগুলো যোগ করুণ

আপনার মূল মান মতামতটি আমাদের জানান। আমি শালীন ভাষা ব্যাবহার করবো এবং অশ্লীল ভাষা ব্যাবহার থেকে বিরত থাকবো। কৌণিক বার্তা.কম আপনার আইপি অ্যাড্রেস ব্লকের ক্ষমতা রাখে।

comment url