সুশিক্ষিত লোক মাত্রই স্বশিক্ষিত ভাবসম্প্রসারণ ডাউনলোড। বাংলা ২য় পত্রের ভাব-সম্প্রসারণ সুশিক্ষিত লোক মাত্রই স্বশিক্ষিত ।

সুশিক্ষিত লোক মাত্রই স্বশিক্ষিত ভাবসম্প্রসারণ ডাউনলোড

সুতরাং যে ভাব বা Idea সংক্ষেপে বা ইঙ্গিতে করা হয়েছে , তাকেই বিস্তৃত করে প্রকাশ করাকে ভাবসম্প্রসারণ বলা হয় ।

ভাব - সম্প্রসারণের ক্ষেত্রে নিম্নোক্ত নিয়মাবলি অনুসরণযোগ্য :

১ . প্রদত্ত চরণ বা গদ্যাংশটি একাধিকবার মনোযোগসহকারে পড়তে হবে । লক্ষ্য থাকবে প্রচ্ছন্ন বা অন্তর্নিহিত ভাবটি কী , তা সহজে অনুধাবন করা । 

২ . অন্তর্নিহিত মূলভাবটি কোনো উপমা , রূপক - প্রতীকের আড়ালে আছে কিনা তা বিশেষভাবে লক্ষ করতে হবে । মূলভাবটি যদি রূপক প্রতীকের আড়ালে প্রচ্ছন্ন থাকে , তবে ভাব - সম্প্রসারণের সময় প্রয়োজনে অতিরিক্ত অনুচ্ছেদ - যোগে ব্যাখ্যা করলে ভালো হয় । 

৩ . মূলভাবকে বিশদ করার সময় সহায়ক দৃষ্টান্ত , প্রাসঙ্গিক তথ্য বা উদ্ধৃতি ব্যবহার করা সংগত । এমনকি প্রয়োজনে ঐতিহাসিক , পৌরাণিক বা বৈজ্ঞানিক তথ্যও উল্লেখ করা যায় । তবে ভুল বা অপ্রাসঙ্গিক তথ্য , উদ্ধৃতি দেওয়ার চেয়ে না দেওয়াই ভালো । 

৪. সহজ - সরল ভাষায় , সংক্ষেপে ভাবটি উপস্থাপন করা উচিত । প্রয়োজনে যুক্তির দ্বারা তাৎপর্যটি উদ্ধার করতে হবে ।

৫. ভাব - সম্প্রসারণ করার সময় মনে রাখতে হবে , যেন বক্তব্যের পুনরাবৃত্তি না ঘটে । বারবার একই কথা লেখা ভাব - সম্প্রসারণের ক্ষেত্রে দোষণীয়




মূলভাব : শুধু প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষায় শিক্ষিত হলেই সুশিক্ষিত হওয়া যায় না । সুশিক্ষিত হতে হলে সৃজনশীল অনুভূতি ও প্রায়োগিক প্রজ্ঞা অর্জন করতে হয় ।

সম্প্রসারিত ভাব : কেবল প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার মাধ্যমে কেউ সুশিক্ষিত হতে পারে না । এটি সত্য যে , আজকাল স্কুল - কলেজের শিক্ষা মূলত পরীক্ষা পাস ও সার্টিফিকেট লাভের শিক্ষা । তাই বিদ্যায়তনের প্রচলিত শিক্ষায় উচ্চ ডিগ্রি লাভ করলেই বলা যায় না সুশিক্ষা লাভ হয়েছে । প্রকৃত শিক্ষিত ব্যক্তি নিজেই সুশিক্ষা লাভ করে নিজের ভেতরকার সুপ্ত প্রতিভাগুলো বিকশিত করেন এবং নিজেকে সুশিক্ষিত হিসেবে গড়ে তোলেন । শিক্ষার্থী শিক্ষার সাহায্যে আত্মশক্তিবলে নিজেকে গড়ে তুলতে সচেষ্ট হয় এবং নিজের আগ্রহে জ্ঞান অর্জন করে নিজেকে সুশিক্ষিত হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করে । বড় বড় ডিগ্রিধারী অনেক ব্যক্তি বিস্তর জ্ঞান থাকা সত্ত্বেও মূর্খের মতো আচরণ করেন । এদের মাঝে অনেকেই জীর্ণ লোকাচার আর কুসংস্কারের বেষ্টনী থেকে এখনও নিজেকে মুক্ত করতে পারেন নি । এমনকি আধুনিক জ্ঞান - বিজ্ঞানের চরম উৎকর্ষের যুগে বাস করেও সনাতন চিন্তাধারাকেই আঁকড়ে ধরে থাকে । এরূপ শিক্ষিত লোককে প্রকৃত শিক্ষিত বলা যায় না । যে ব্যক্তি নিজেকে নানারকম প্রথা ও সংস্কারে বেঁধে রেখেছে , সে উচ্চতর ডিগ্রিপ্রাপ্ত হলেও তাকে সুশিক্ষিত বলা যায় না । দার্শনিক এরিস্টটল প্লেটো , বৈজ্ঞানিক নিউটন , রবীন্দ্রনাথ , নজরুল প্রমুখ মনীষী কোনো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শিক্ষা অর্জন করেন নি । কিন্তু তাঁরা নিজেদে অবিরাম চেষ্টা ও নিরন্তর অধ্যবসায়ের মাধ্যমে জ্ঞান অর্জন করে পৃথিবীর মানুষের সামনে রেখে গেছেন জ্ঞানের এক একটা বিশাল সাম্রাজ্য সুতরাং , নিজের নিরলস চেষ্টা ও আগ্রহ ছাড়া সুশিক্ষিত হওয়ার দ্বিতীয় কোনো পথ খোলা নেই । তাই প্রমথ চৌধুরী যথার্থই বে সুশিক্ষিত লোক মাত্রই স্বশিক্ষিত । 

মন্তব্য : মানবজীবনে শিক্ষার গুরুত্ব অনস্বীকার্য । কিন্তু এ শিক্ষা হতে হবে বাস্তবধর্মী ও ন্যায়ানুগ ।

নিচে গিয়ে ভাবসম্প্রসারণ এর সম্পূর্ণ তালিকা দেখুন।

আপনাদের সুবিধার কথা চিন্তা করে এবং আপনাদের ইংরেজি ভাষা পড়া ও চর্চা করার জন্য সুশিক্ষিত লোক মাত্রই স্বশিক্ষিত  ভাবসম্প্রসারণটি ইংরেজি ভাষাতে লেখা হয়েছে নিচে তা ইংরেজি অনুবাদ দেওয়া আছে। আপনি সেখান থেকে পড়তে এবং কপি করতে পারবেন, ধন্যবাদ। 





আপনি পিডিএফ ফাইল ডাউনলোড করতে পারবেন 180 সেকেন্ড পর



Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url