প্রয়োজনীয়তাই উদ্ভাবনের জনক ভাবসম্প্রসারণ সকল শ্রেণির জন্য, প্রয়োজন মানুষকে নতুন কিছু আবিষ্কার করতে শিখায়।

ভাব সম্প্রসারণ কি ? ভাবসম্প্রসারণ কাকে বলে?

আমাদের দেশের কবি-সাহিত্যিকদের লেখায় কখোনো কোনো একটি বাক্যে বা কবিতার এক বা একাধিক চরণে গভীর কোনো ভাব নিহিত থাকে। সেই ভাবকে বিস্তারিতভাবে লেখা, বিশ্লেষণ করাকে ভাবসম্প্রসারণ বলে।
ভাবসম্প্রসারণ
ভাবসম্প্রসারণ

প্রয়োজনীয়তাই উদ্ভাবনের জনক ভাবসম্প্রসারণ লেখার নিয়ম বা ভাবসম্প্রসারণ করার ক্ষেত্রে যেসব দিক বিশেষভাবে খেয়াল রাখতে হবেঃ

১। উদ্ধৃত অংশটুুকু মনোযোগসহ পড়তে হবে।

২৷ অন্তর্নিহিত ভাবটি বোঝার চেষ্টা করতে হবে।

৩। অন্তর্নিহিত ভাবটি কোনো উপমা-রূপকের আশ্রয়ে নিহিত আছে কি না, তা চিন্তা করতে হবে।

৪। সহজ-সরলভাবে মূল ভাবকে ফুটিয়ে তুলতে হবে।

৫। মূল বক্তব্যকে প্রকাশরূপ দেওয়ার জন্য প্রয়োজনে যুক্তি উপস্থাপন করতে হবে।

৬। বক্তব্যের পুনরাবৃত্তি যেন না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

প্রয়োজনীয়তা উদ্ভাবনের জনক এই ভাবসম্প্রসারণ লিখার নিয়ম উপর থেকে জেনেছি৷ আমরা শিখতে পারবো প্রয়োজনীয়তা উদ্ভাবনের জনক ভাবসম্প্রসারেণ কি ভাবে লিখতে পরবো। ৬ষ্ঠ, ৭ম, ৮ম, ৯ম, ১০ম শ্রেণী এবং SSC HSC JSC PSC বাংলা ২য় পত্রের ভাবসম্প্রসারণ।

মূলভাব:

প্রয়োজন বা চাহিদার অনুভূতি থেকেই মানুষ তিলে তিলে সভ্যতাকে গড়ে তুলেছে। প্রয়োজনের চাপ না থাকলে পৃথিবীর কর্মকোলাহল থেমে যেত। প্রয়োজন মানুষকে নতুন কিছু উদ্ভাবন করতে শিখায়। প্রয়োজন ছাড়া পৃথিবী চলবে না। কারণ আমাদের প্রয়োজন আছে বলে নতুন নতুন আবিষ্কার করছি।

সম্প্রসারিত ভাব:

পরিশ্রম যেমন সৌভাগ্যের মাতা , তেমনি প্রয়োজন উদ্ভাবনের জনক । আজকের সভ্যতা এবং বৈজ্ঞানিক আবিষ্কারসমূহ মানুষের প্রয়োজনের দাবিতেই অর্জিত হয়েছে । মানুষ সৃষ্টির সেরা জীব । মানুষের শ্রেষ্ঠত্ব মূলত তার বিচিত্রমুখী কর্মসাধনায় নিহিত । সম্পূর্ণ অপরিচিত , অনভিজ্ঞ ও অসহনীয় প্রাকৃতিক পরিবেশে মানুষের জন্ম । জন্মের পরই তাকে সম্মুখীন হতে হয়েছে নানাবিধ অভাব অভিযোগের । একটার পর একটা অভাব মানুষকে জর্জরিত করে তুলেছিল । জীবনধারণকে অনিশ্চিত ও অসহনীয় করে তুলেছিল । বৈরী প্রকৃতি , শ্বাপদসংকুল অরণ্য , অসহনীয় প্রাকৃতিক পরিবেশ থেকে আত্মরক্ষা ও সুস্থ স্বাভাবিক জীবনযাপনের প্রয়োজনে মানুষকে নিরলস সংগ্রাম করতে হয়েছে । আহার , বাসস্থান , আত্মরক্ষার ক্রমবর্ধমান তাগিদে মানুষকে ত্যাগ , তিতিক্ষা , সাধনা , সংগ্রাম , বুদ্ধি ও মেধার পরিচর্যার মাধ্যমে ধীরে ধীরে মানুষ তার প্রতিকূল অবস্থায় উত্তীর্ণ হতে সাহায্য করেছে । প্রয়োজনের তাগিদ থেকে বিজ্ঞানের এই বিস্ময়কর বিকাশ সূচিত হয়েছে।

মন্তব্য:

সভ্যতার সীমাহীন প্রয়োজনের তাগিদেই মানুষ আবিষ্কার করেছে নতুন নতুন পন্থা , উপকরণ ও পণ্য । তাই চাহিদা বা প্রয়োজন না থাকলে মানবজীবন হয়ে পড়ত শ্রীহীন ও স্থবির ।


বিঃদ্রঃ বাংলাদেশর সকল শিক্ষা বিষয়ের খবর এবং বাংলা ২য় ও ইংরেজি ২য় এবং সকল বিষয়ের তথ্য জানতে চোখ রাখুন  কৌণিক বার্তা ফেসবুক পেজে নিচে লিংক দেওয়া হলোঃ-


ভাবসস্প্রসারণের সম্পূর্ণ তালিকা
আপনি পিডিএফ ফাইল ডাউনলোড করতে পারবেন 180 সেকেন্ড পর



Next Post Previous Post
মন্তব্যগুলো দেখান
মন্তব্যগুলো যোগ করুণ

আপনার মূল মান মতামতটি আমাদের জানান। আমি শালীন ভাষা ব্যাবহার করবো এবং অশ্লীল ভাষা ব্যাবহার থেকে বিরত থাকবো। কৌণিক বার্তা.কম আপনার আইপি অ্যাড্রেস ব্লকের ক্ষমতা রাখে।

comment url