৮ম শ্রেণীর ৬ষ্ঠ সপ্তাহের ইসলাম শিক্ষা এ্যাসাইনমেন্ট উত্তর, অষ্টম,৮ম শ্রেণীর অ্যাসাইনমেন্ট ইসলাম ধর্ম ও নৈতিকতা শিক্ষা উত্তর ৬ষ্ঠ সপ্তাহের

৮ম শ্রেণীর অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ৬ষ্ঠ সপ্তাহের ২০২২
৮ম শ্রেণীর অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ৬ষ্ঠ সপ্তাহের ২০২২

অষ্টম,৮ম শ্রেণীর অ্যাসাইনমেন্ট ইসলাম ধর্ম ও নৈতিকতা শিক্ষা উত্তর ৬ষ্ঠ সপ্তাহের ২০২২, ৮ম শ্রেণীর ৬ষ্ঠ সপ্তাহের ইসলাম শিক্ষা এ্যাসাইনমেন্ট উত্তর

চলমান Covid-19 মহামারীর কারণে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা মোতাবেক পুনর্বিন্যাস কৃত পাঠ্যসূচির ভিত্তিতে শিক্ষার্থীদের শিখন কার্যক্রমে পুরোপুরি সম্পৃক্তকরণ ও ধারাবাহিক মূল্যায়ন এর আওতায় আনার জন্য ৮ম শ্রেণির ইসলাম ও নৈতিকতা শিক্ষা অ্যাসাইনমেন্ট ৬ষ্ঠ সপ্তাহের উত্তর  প্রকাশ করা হয়েছে। ৬ শে ফ্রেরুয়ারি ২০২২ থেকে ৬ষ্ঠ সপ্তাহের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রম শুরু হবে। ২০২২ সালের ৮ম শ্রেণি পরীক্ষার্থীদের জন্য ৬ষ্ঠ সপ্তাহ ইসলাম শিক্ষা এসাইনমেন্ট প্রশ্ন প্রকাশিত হয়েছে। অষ্টম শ্রেণীর অ্যাসাইনমেন্ট ৬ষ্ঠ সপ্তাহের ইসলাম শিক্ষা উত্তর।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রকাশিত বিভিন্ন বিজ্ঞপ্তিতে সারা দেশের সকল শিক্ষাব্যবস্থা বিভিন্ন পদ্ধতিতে পরিচালিত হচ্ছে। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন প্রক্রিয়া অনুসরণ করে শিক্ষা মন্ত্রণালয় সারা দেশের সকল শিক্ষা কার্যক্রম চালু রেখেছে। এরই ধারাবাহিকতায় ৬ শে ফ্রেরুয়ারি ২০২২ তারিখ অষ্টম শ্রেণীর ইসলাম শিক্ষা অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশতি হয়েছে। ইসলাম শিক্ষা অ্যাসাইনমেন্ট ৬ষ্ঠ সপ্তাহের উত্তর আমাদের ওয়েবসাইটে কৌণিক বার্তা অ্যাসাইনমেন্ট এর নমুনা উত্তর প্রকাশিত হয়েছে। এই উত্তর দেখে শিক্ষার্থীরা এসাইনমেন্ট এর সমাধান কিভাবে করতে হবে সে সম্পর্কে ধারনা পাবেন। অষ্টম শ্রেণির এসাইনমেন্ট উত্তর ৬ষ্ঠ সপ্তাহের আমাদের ওয়েবসাইট থেকে নমুনা হিসেবে ডাউনলোড করে নিতে পারেন। ৮ম শ্রেণির  ইসলাম ও নৈতিকতা শিক্ষা অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ২০২২।

৮ম শ্রেণির অ্যাসাইনমেন্ট ইসলাম শিক্ষা সমাধান ৬ষ্ঠ সপ্তাহ ২০২২

৬ষ্ঠ সপ্তাহের উত্তর ও প্রশ্ন সম্পর্কে প্রকাশিত করা হয়ে থাকে কৌণিক বার্তা ওয়েবসাইট। ২০২২ সালে ৮ম (অষ্টম) শ্রেণীর ইসলাম শিক্ষা অ্যাসািনমেন্ট ৬ষ্ঠ সপ্তাহের উত্তর যে সকল পরীক্ষার্থী বিদ্যালয়ে সকল বিভাগ নিয়ে পড়াশোনা করেছেন তাদের জন্য। সকল বিভাগের একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে  বিজ্ঞান সম্পর্কে এবার এসাইনমেন্ট প্রকাশিত হয়েছে। ৮ম শ্রেণীর ইসলাম শিক্ষা অ্যাসাইনমেন্ট সমাধান। অষ্টম শ্রেণীর অ্যাসাইনমেন্ট ৬ষ্ঠ সপ্তাহের ইসলাম শিক্ষা উত্তর আমাদের ওয়েবসাইটে নমুনা উত্তর হিসেবে পাওয়া যাচ্ছে। অষ্টম শ্রেণীর ইসলাম শিক্ষা ৬ষ্ঠ সপ্তাহ অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর ২০২২

৮ম শ্রেণির অ্যাসাইনমেন্ট ৬ষ্ঠ সপ্তাহের ইসলাম শিক্ষা উত্তর ও প্রশ্ন ২০২২

৮ম শ্রেণির অ্যাসাইনমেন্ট ৬ষ্ঠ সপ্তাহের ইসলাম শিক্ষা উত্তর ও প্রশ্ন ২০২২
৮ম শ্রেণির অ্যাসাইনমেন্ট ৬ষ্ঠ সপ্তাহের ইসলাম শিক্ষা উত্তর ও প্রশ্ন ২০২২

৮ম শ্রেণীর ৬ষ্ঠ সপ্তাহের ইসলাম শিক্ষা এ্যাসাইনমেন্ট উত্তর, অষ্টম,৮ম শ্রেণীর অ্যাসাইনমেন্ট ইসলাম ধর্ম ও নৈতিকতা শিক্ষা উত্তর ৬ষ্ঠ সপ্তাহের

অ্যাসাইনমেন্ট উত্তর শুরু

৮ম শ্রেণির অ্যাসাইনমেন্ট ৬ষ্ঠ সপ্তাহ উত্তর ২০২২

বিষয়ঃ ইসলাম শিক্ষা 

শিরোনামঃ ব্যাক্তি ও সমাজ জীবনে আল আসমাউল হুসনার প্রতিফলন ঘটানোর উপায় নির্ধারণ।


আল্লাহ তায়ালার পাঁচটি পবিত্র গুণবাচক নাম রয়েছে তার একটি তালিকা তৈরি করে নামের অর্থ ব্যাখ্যা করা হলোঃ

আল্লাহর গুনবাচক নাম নামের অর্থ
আল্লাহু গাফ্ফারুন আল্লাহ অতি ক্ষমাশীল আল্লাহ অমুখাপেক্ষী
আল্লাহু সামাদুন আল্লাহু রাউফুন আল্লাহ অতি দয়াবান
আল্লাহ হিসাব গ্রহণকারী আল্লাহ হাসিবুন
আল্লাহু মুহাইমিনুন আল্লাহ আশ্রয় দাতা আল্লাহর

 

গুণবাচক নামের গুরুত্ব বর্ণনা করা হলোঃ

আল - আসমাউল হুসনার গুরুত্ব ও তাৎপর্য অপরিসীম । এ নামগুলো তাঁর পরিচয় ও ক্ষমতার প্রকাশ ঘটায় । এ নামগুলোর মাধ্যমে আমরা আল্লাহ তায়ালার গুণ ও বৈশিষ্ট্য জানতে পারি ৷ ফলে তাঁর আদেশ - নিষেধ পালন করতে সহজ হয় । এ নামগুলোর দ্বারা আমরা আল্লাহ তায়ালাকে ডাকতে পারি । এসব নামে ডাকলে তিনি খুশি হন । এসব নাম ধরে আমরা মোনাজাত করতে পারি।

অর্থ : “ আল্লাহর জন্যই রয়েছে সুন্দর নামসমূহ। সুতরাং তোমরা তাঁকে মে সকল নাম দ্বারাই ডাকো। যারা তাঁর নাম বিকৃত করে তাদেরকে বর্জন করো। অচিরেই তাদের কৃতকর্মের ফল প্রদান করা হবে। ” ( সূরা আল - আ'রাফ , আয়াত ১৮০ )। আল্লাহ তায়ালার গুণবাচক নামসমূহ আমাদের উত্তম চরিত্রবান হতে অনুপ্রাণিত করে। আল্লাহ তায়ালার এসব গুণ অর্জনের জন্য মানুষ তার জীবনে চর্চা করলে সে সচ্চরিত্রবান হয়। সমাজে নৈতিক ও মানবিক মূল্যবোধ প্রতিষ্ঠিত হয়।


আল কুরআনে বলা হয়েছে, [আরবি ভাষায় লেখা, দয়া করে নিচে থেকে পিডিএফ ডাউনলোড করুণ]


অর্থ : ( আমরা গ্রহণ করলাম ) “ আল্লাহর রং , আর রঙে আল্লাহ অপেক্ষা আর কে অধিকতর সুন্দর ? ” ( সূরা আল - বাকারা , আয়াত ১৩৮ ) আল্লাহর রং হলো আল্লাহর দীন ও তাঁর গুণাবলি। আর সর্বোত্তম গুণাবলিতো আল্লাহরই। সুতরাং আল্লাহর গুণাবলির অনুসরণ করলে উত্তম চরিত্রবান হওয়া সম্ভব। নিম্নেবর্ণিত আলোচনায় আমরা আল্লাহ তায়ালার কতিপয় গুণের সাথে পরিচিত হব।

আল্লাহ তায়ালার পবিত্র গুণবাচক নামগুলো নিজ জীবনে প্রতিফলনের উপায় বর্ণনা করা হলোঃ

আল্লাহতালা অতি ক্ষমাশীল। আমারা অনেকেই জানা - অজানায় অনেক গুনা করে ফেলি।তাই সবসময় আল্লাহর নওকট ক্ষমা চাইব।তিনি অতি ক্ষমাশীল।তিনি আমাদের ক্ষমা করে দেন।আমারও কেই কোন অন্যায় করলে তাকে ক্ষমা করে দিব। আবার , আল্লাহ কারো মুখাপেক্ষী নন।আমরা পরমুখাপেক্ষিতা বর্জন করব। আল্লাহ ব্যতীত আর কারো নিকট সাহায্য চাইব না। আল্লাহ অতি স্নেহশীল। আমরাও ছোটদের স্নেহ করবে।সুতরাং পরিশেষে বলা যায় যে , এইভাবে আমরা আল্লাহর গুণবাচক নামসমূহ নিজ জীবনে প্রয়োগ করব।

সমাজ জীবনে আল আসমাউল হুসনার প্রভাব নিরূপণ করা হলোঃ

আল্লাহর ' আসমাউল হুমনা ' বা সুন্দর নামসমূহ ও সুউচ্চ গুণসমূহের জ্ঞানার্জন করা মহোত্তম ও শ্রেষ্ঠতম জ্ঞানের অংশ। আল্লাহর প্রত্যেক নামের বিশেষ বৈশিষ্ট্য রয়েছে। তাঁর নামসমূহে প্রশংসা ও পূর্ণতার গুণ রয়েছে। প্রত্যেক সিফাতের নিজস্ব দাবীও রয়েছে। প্রত্যেক কর্মের ক্রিয়া রয়েছে , যা কর্মের অপরিহার্য অংশ। আল্লাহর সত্তা তাঁর নাম থেকে , আর নাম গুণাবলী ও এর অর্থ থেকে , তাঁর গুণাবলী আনুষঙ্গিক কর্ম থেকে এবং তাঁর কর্ম অত্যাবশ্যকীয় প্রভাব থেকে বিচ্ছিন্ন হয় না। এ সবকিছুই তাঁর নাম ও গুণাবলীর প্রভাব।আল্লাহর কর্মসমূহ প্রজ্ঞাময় ও কল্যাণজনক। তাঁর নামসমূহ সুন্দর। সুতরাং এগুলোর নিজস্ব কোন ক্রিয়া থাকবে না- এমনটি মনে করা অবাস্তব ও অযৌক্তিক। একারণে যারা আল্লাহকে আদেশ , তিনি এমন পবিত্র সত্তা যিনি তাঁর নাম ও গুণাবলীর সারমর্ম ও যার মধ্যে তা পাওয়া যাবে , তাকে ভালবাসেন। যেমন : তিনি জ্ঞানী , তিনি প্রত্যেক জ্ঞানীকে ভালবাসেন। তিনি দানশীল , সকল দানশীলকে ভালবাসেন। তিনি বেজোড় এবং বেজোড়কে পছন্দ করেন। তিনি সুন্দর , সুন্দরকে ভালবাসেন ; মার্জনাকারী , মার্জনা এবং এ গুণের অধিকারীকে ভালবাসেন। লজ্জাশীল , লজ্জা ও এই গুণের অধিকারীকে ভালবাসেন ; কল্যাণকামী , তিনি কল্যাণকামীকে ভালবাসেন ; কৃতজ্ঞশীল , তিনি কৃতজ্ঞশীলকে ভালবাসেন ; তিনি ধৈর্যশীল , ধৈর্যশীলকে ভালবাসেন । তাও বা , ক্ষমা , মার্জনা গুণের অধিকারীকে এবং যে অন্যের ভুলবিচ্যুতি উপেক্ষা করে তাকে তিনি ভালবাসেন , তিনি তাকে ক্ষমা করেন এবং তার তাওবা কবুল করেন । তাকে মার্জনা করেন এবং তার ( ভুল ) উপেক্ষা করেন । নিষেধ , সওয়াব ও শাস্তি প্রদান থেকে নিষ্ক্রিয় সাব্যস্ত করে , আল্লাহ তাদেরকে প্রত্যাখ্যান করেছেন । এরা আল্লাহর জন্য এমন কিছু বিষয় সাব্যস্ত করেছে যা তাঁর জন্য যথার্থ নয় । তিনি এসকল বিষয় থেকে পবিত্র ৷ এমন সাব্যস্তকরণ একটি গর্হিত কাজ । যারা এমন কিছু সাব্যস্ত করেছে তারা আল্লাহর সম্মান যাথাযথ নিরূপণ করতে পারেনি । তাঁর মর্যাদা যথাযথ অনুধাবন করতে পারেনি ।

যেমনটি নবুওয়াত , রামূল প্রেরণ ও কোরআন অবতরণকে যারা অস্বীকার করে তাদের সম্পর্কে আল্লাহ বলেছেন : তারা আল্লাহকে যথার্থ মূল্যায়ন করতে পারেনি , যখন তারা বলল : আল্লাহ কোন মানুষের প্রতি কোন কিছু অবতীর্ণ করেননি । [ সূরা : আল - আন'আম , আয়াত : ৯১ ]

তিনি সৃষ্টির কোন জিনিসের সাদৃশ্য গ্রহণ করেন নি , আর সৃষ্টির কোনকিছুও তাঁর সাদৃশ্য নয় । তিনি তাঁর নাম এবং গুণাবলীসহ সর্বদা ছিলেন এবং থাকবেন । -ইমাম আবু হানীফা ।


বিশেষ সতর্কতা: উপরোক্ত নমুনা উত্তরগুলো দেওয়ার একমাত্র উদ্দেশ্য হল, শিক্ষার্থীদের নির্ধারিত বিষয়ের উপর ধারণা দেওয়া। ধারণা নেওয়ার পর অবশ্যই নিজের মত করে এসাইনমেন্ট লিখতে হবে। উল্লেখ্য যে, হুবহু লেখার কারণে আপনার উত্তর পত্রটি বাতিল হতে পারে। এ সংক্রান্ত কোন দায়ভার KouNik Barta-এর নয়।

৮ম শ্রেণীর অ্যাসাইনমেন্ট ইসলাম ধর্ম ও নৈতিকতা শিক্ষা উত্তর ৬ষ্ঠ সপ্তাহের ২০২২, ৮ম শ্রেণীর ৬ষ্ঠ সপ্তাহের ইসলাম শিক্ষা এ্যাসাইনমেন্ট উত্তর


৬ষ্ঠ - ১০ম শ্রেণির ৬ষ্ঠ সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট ২০২২ পিডিএফ ডাউনলোড


আপনি পিডিএফ ফাইল ডাউনলোড করতে পারবেন 180 সেকেন্ড পর




Next Post Previous Post
মন্তব্যগুলো দেখান
মন্তব্যগুলো যোগ করুণ

আপনার মূল মান মতামতটি আমাদের জানান। আমি শালীন ভাষা ব্যাবহার করবো এবং অশ্লীল ভাষা ব্যাবহার থেকে বিরত থাকবো। কৌণিক বার্তা.কম আপনার আইপি অ্যাড্রেস ব্লকের ক্ষমতা রাখে।

comment url