ভাব-সম্প্রসারণঃ তুমি অধম, তাই বলিয়া আমি উত্তম হইব না কেন? তুমি অধম তাই বলিয়া আমি উত্তম কার উক্তি

তুমি অধম, তাই বলিয়া আমি উত্তম হইব না কেন?

তুমি অধম, তাই বলিয়া আমি উত্তম হইব না কেন? ভাব-সম্প্রসারণ খুব সহজে  লিখতে ভালো নাম্বার নিতে পারবনে । তুমি অধম, তাই বলিয়া আমি উত্তম হইব না কেন? ভাবসম্প্রসারণ ৬ষ্ঠ, ৭ম, ৮ম, ৯ম, ১০ম শ্রেণী এবং SSC HSC JSC PSC বাংলা ২য় পত্রের ভাবসম্প্রসারণ।

 

ভাবসম্প্রসারণ  তুমি অধম, তাই বলিয়া আমি উত্তম হইব না কেন ৬ষ্ঠ, ৭ম, ৮ম, ৯ম, ১০ম ১১ ও ১২ শ্রেণীর জন্য কাযকারি ।

মূলভাব:

উত্তম আদর্শ অনুকরণীয় আর অধমের আদর্শ অবশ্যই পরিত্যাজ্য। অধমের অন্যায় আচরণের জবাবে অন্যায় আচরণ করা সমীচীন নয়। পরের সুকৃতিতে অনুপ্রাণিত হওয়া প্রশংসনীয় কিন্তু পরের স্বার্থপরতায় প্রভাবিত হওয়া অনাকাক্ষিত । অন্যের অন্যায় , অমানবিক ও অশুভ আচরণ কখনও মানুষের অনুকরণীয় ও অনুসরণীয় আদর্শ হতে পারে না । আদর্শ জীবন গঠনে মানুষের সাধনা হওয়া উচিত সত্য , ন্যায় ও মানবিকতা।

সম্প্রসারিত ভাব:

এ সংসারে কেবল ভালো বা মন্দ বলে কিছুই নেই। ভালো ও মন্দ নিয়েই গড়ে উঠেছে এ সংসার। চরিত্র বৈশিষ্ট্য ও মানসিকতার বিচার সংসারে সব মানুষ অভিন্ন চরিত্রের হয় না, মানুষের মধ্যে ভালো ও আছে মন্দও আছে। আমদের সংসারে ভালো লোকের তুলনায় মন্দ লোকের সংখ্যাই বেশি এবং এরা সর্বদাই অপরের ক্ষতিসাধনে ব্যস্ত । সমাজে , সংসারে এরাই ঘিরে আছে আমাদের চারপাশে। মনুষ্যত্ব ‍ও মানবতাবোধ বিবজিত অধম মানুষদের অন্যায় কাজে লিপ্ত থাকাটা খুবই স্বাভাবিক । কিন্তু তাই  বলে এদের সাথে তাল মিলিয়ে আমাকেও মন্দ হতে হবে এমন কোনো কথা নেই । ভালো হওয়া মানুষের ইচ্ছা বা অনিচ্ছার ওপর নির্ভর করে। অন্যেরা মন্দ হতে পারে , কিন্তু আমার আছে ভালো হওয়ার । অধম হওয়ার পথ ভালো হওয়ার পথের চেয়ে সহজ । পক্ষান্তরে , উত্তম হওয়ার পথ কঠিন । নিজের সাধ্য ও সামর্থ্য মতো এরা অন্যের কল্যাণের চেষ্টার সচেষ্ট থাকেন। তুমি অধম, তাই বলিয়া আমি উত্তম হইব না কেন

যারা উত্তম তারা শত বাধা-বিঘ্ন সত্ত্বেও মানুষের কল্যাণ কাজ করে যান। সংসারে যারা উত্তম মানুষ তারা শত লোভ-প্রলোভন ‍উপেক্ষা করে আদর্শ ও নীতিতে অবিচল থাকেন । কখনো কখনো দেখা যায়, কেউ কেউ কোনো একটি অন্যায় কাজকে অন্য একটি অন্যায় দিয়ে রুখতে সচেষ্ট হয়। কিন্তু কোনো হীন বা নীচ ব্যক্তি সমাজবিরোধী ক্ষতিকর কাজ করলেও তার প্রতিবিধান হীন কাজ দিয়ে করা সমীচীন নয়। উত্তম ব্যবহার কিংবা ক্ষমার আদর্শ দিয়ে তার অন্যায়ের সুবাহা করা উচিত । ক্ষমার এই উত্তম আদর্শ যাদের রয়েছে তাদের পথ অনুসরণ করে আমাদেরও পরহিতে জীবন উৎসর্গ করা উচিত এবং এটিই হচ্ছে মানুষের মধ্যে উত্তম হবার একমাত্র পথ। কারণ , এ পৃথিবীতে যারা বা উত্তম তারাই প্রকৃত মানুষ নামের যোগ্য । অধমের কার্যকলাপের বিপরীতে উত্তম কার্যকলাপের আদর্শ স্থাপনই মনুষ্যত্বের লক্ষণ। সেই জন্যেই ছন্দের জাদুকর সত্যেন্দ্রনাথ লিখেছেন :

কুকুরের কাজ কুকুর করেছে কামড় দিয়েছে পায়,

তা বলে কুকুরে কামড়ানো কিরে মানুষের শোভা পায়?

মন্তব্য:

তুমি অধম, তাই বলিয়া আমি উত্তম হইব না কেন এই সম্পর্ক সমাজে ভালো ও মন্দ এ উভয় শ্রেণির লোকই বাস করে। মন্দ পরিহার করে ভালো লোকের সাথেই জীবনযাপন করা উচিত। প্রকৃত মানুষ হতে হলে অন্যের কদর্য ব্যবহার প্রভাবিত হলে চলবে না।


অথবা

মূলভাব : অন্যের খারাপটুকু উদাহরণ হিসেবে গ্রহণ করা উচিত নয়।

আভিধানিক অর্থ : আমার পাশের জন খারাপ বলে আমার ভাল হতে দোষ নেই।

সম্প্রসারিত ভাব : পৃথিবীতে ভাল ও মন্দ দুই-ই আছে। মন্দের আধিক্য বেশী বলে মন্দকেই আঁকড়ে ধরতে হবে এমন কথা নেই। মন্দ লোকেরা নিজের স্বার্থের জন্য যেকোন অপকর্ম অবলীলায় করতে পারে। এবং তারা নিশ্চিতমনে অপরের সর্বনাশ করে থাকে। মন্দ লোকের কোন আদর্শ নেই। তারা হীনমনা। তাদের নীচ কাজের প্রত্যুত্তরে আর একটি নীচকাজে অংশ নেওয়া কোন মহৎ মানুষের পক্ষে সম্ভব নয়। একজন নীচ ব্যক্তি যদি কোন খারাপ কাজ করে বা কোন লোকের খারাপ তাই খারাপ কাজে তার অরুচি নেই। কোন মহৎ লোক কোন ক্রমেই খারাপ লোকের কু-কর্মের উত্তর দিতে দিয়ে খারাপ কাজে অংশ নেবেন না। অধম ব্যক্তিরা অমঙ্গল করে। তাই বলে উত্তম ব্যক্তি সে পথ ধরে চলে না। উত্তম হতে হলে হিংসার পথ, অন্যায়ের পথ ত্যাগ করতে হয়। কুকুর অধম প্রাণী। সে পায়ে কামড়ায়। তাই বলে মানুষ কখনো কুকুরের পায়ে কামড়ায় না।অধম যে সে ক্ষতি করতে পারে। তার ক্ষতি করা প্রবৃত্তিজাত। মহৎ ব্যক্তি কখনো ক্ষতিকর কাজে অংশ নেন না। কোন ব্যক্তি দুর্ব্যবহার করলে প্রত্যুত্তরে তার প্রতি দুর্ব্যবহার করা মহত্ত্বের লক্ষণ নয়। তার ব্যবহারের উত্তরে উত্তম মানবিক আচরণই কাম্য। অর্থাৎ, ক্ষমা, বিনয়, সহ্যগুণ ও ভালোবাসাই হচ্ছে চরিত্র গঠনের আদর্শ।

তুমি অধম তাই বলিয়া আমি উত্তম কার উক্তি?

উত্তরঃ বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের ‘কপালকুণ্ডলা’ উপন্যাসে নায়ক নবকুমারের একটি বিখ্যাত উক্তি রয়েছে। সেটি হলো, ‘তুমি অধম- তাই বলিয়া আমি উত্তম না হইব কেন?’

খুব চমৎকার কথা। এ ধরনের উক্তি আমাদের ভেতর যে দেবতূল্য গুণাবলি রয়েছে তা ফুটিয়ে তুলতে সাহায্য করে। কেউ আমাদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করলেও তার প্রতি ভাল ব্যবহারে উদ্বুদ্ধ করে।


বিঃদ্রঃ বাংলাদেশর সকল শিক্ষা বিষয়ের খবর এবং বাংলা ২য় ও ইংরেজি ২য় এবং সকল বিষয়ের তথ্য জানতে চোখ রাখুন  কৌণিক বার্তা ফেসবুক পেজে নিচে লিংক দেওয়া হলোঃ-


# তুমি অধম তাই বলিয়া আমি উত্তম হইব না কেন in english

# তুমি অধম তাই বলিয়া আমি উত্তম কার উক্তি

# তুমি অধম তাই বলিয়া আমি উত্তম হইব না কেন ইংরেজি

# ভাবসম্প্রসারণ তুমি অধম তাই বলিয়া


ভাবসস্প্রসারণের সম্পূর্ণ তালিকা
Next Post Previous Post
মন্তব্যগুলো দেখান
মন্তব্যগুলো যোগ করুণ

আপনার মূল মান মতামতটি আমাদের জানান। আমি শালীন ভাষা ব্যাবহার করবো এবং অশ্লীল ভাষা ব্যাবহার থেকে বিরত থাকবো। কৌণিক বার্তা.কম আপনার আইপি অ্যাড্রেস ব্লকের ক্ষমতা রাখে।

comment url